আজ তোমাকে শাড়ীতে দেখেছি

আজ তোমাকে শাড়ীতে দেখেছি,
আর দহনে সিক্ত হয়ে নিজেই কিছুক্ষণ হেসেছি ।
হাতের চুড়ির শব্দে বা মিস্টি হাসির আড়াল,
কিভাবে পারো লুকাতে তোমার শত কস্টের বেড়াজাল ।
ঠোঁটের রংয়ে, বাঁকা হাসি আর চুলের কারুকাজ,
চোখের কাজলে মিশে একাকার সবখানি লাজ ।

সব ব্যাথা উপশম করে তোমার সুশ্রীবদনে,
তাই জড়াব্যধিতে পথ্য পাথেয় শুধু সে মুখ দর্শনে ।
খোঁপাতে তাই গুজে দেই এক শ্বেতশুভ্র ধুতুরা ফুল,
যাতে উৎসুকেরা জানুক তুমি বইছো আমার কুল !
ভুলের মাসুলে মাপিনি তো আমি তোমার ললাট,
তাই ভুলের সাগরে কুল হারা হয়ে খুঁজি চেনা সেই ঘাট ।
কত পথ পাড়ি দিলে বলো, কতটা কস্ট সইলে,
হব আমি তোমার প্রিয়দর্শন, হৃদয়ের মহাসাগর-এ ।

এ পথে তব হেটেছো অনেক, অনেক বেলা হয়েছে,
তাই পথের পাশে না হয় একটু জিরালে এই কুটির-এ ।
মান গেছে, ধান গেছে , বাকী ছিল সতত মননে,
সেটাও না হয় দিলাম সঁপে প্রেম-দেবীর মনোরঞ্জনে ।
কেউ কি ভাবে আমার মতন, এ জগতে আর কেহ?
জানি না তোমার ভাঙ্গবে কবে অহমিত এই মোহ !

অন্য সাজে জাগে না এতটা তুফান মনে,
শাড়ীতেই তাই ভাল লাগে, আবেগতাড়িত আখ্যানে ।
তাই পরতে পারো গোলাপী, বাসন্তী কিংবা নীল শাড়ী,
শুধু খোঁপাতে দিও সাদা ফুলের মঞ্জুরী ।
হাতে মেহেদী কিংবা পায়ে না হয় আলতা নাই দিলে,
তবুও জেনো, শাড়ীতেই তুমি অপ্সরী সাথে হাসতে পরো প্রান খুলে ।
আজ তোমাকে শাড়ীতে দেখে তাই হৃদয়ের সব ব্যথা ভুলি,
হৃদয় তোমার সিক্ত হোক নিয়ে ভালবাসার এ অঞ্জলি ।

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.