গবেষণা পদ্ধতিশাস্ত্র সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা – ৩

গবেষণা পদ্ধতিশাস্ত্র সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা – ৩
——————————————- ড. রমিত আজাদ

Rationale of the study ও Objective of the study:

গবেষণা পদ্ধতিশাস্ত্র-এ একটা প্রশ্ন খুবই কমোন Rationale of the study ও Objective of the study এই দুইয়ের মধ্যে পার্থক্য কি?
আমি প্রথমে এই দুটি বিষয়ের বাংলা অর্থ বলছি, তারপর বাংলা ও ইংরেজী মিলিয়ে তার ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ করছি।
Rationale শব্দটির অর্থ ‘যুক্তিসহ ব্যাখ্যা’, ‘যৌক্তিক কারণ’ ও ‘যৌক্তিক ভিত্তি’ ইত্যাদি; আর Objective শব্দটির অর্থ ‘উদ্দেশ্য’।

এবার Rationale ও Objective-এর সংজ্ঞায়ন করছি

Rationale: A set of reasons or logical basis for a research. কোন একটি গবেষণা করার জন্য এক ঝাঁক কারণ বা যৌক্তিক ভিত্তি।
Objective: A thing aimed at. যে দিকে লক্ষ্য স্থির করা হয়েছে।
যেমন: রাত জেগে পড়ে পড়ে ইলেকট্রিক বিল খরচ করার যৌক্তিকতা (Rationale) হলো পরীক্ষা পাশ করার উদ্দেশ্য (Objective) অর্জন।

Rationale: The reason of the research. গবেষণাটি করার কারণ।
Objective: The purpose of the research. গবেষণাটি করার উদ্দেশ্য।

এক কথায় বললে, ‘Rationale হলো Objective সিদ্ধির কারণ’।

Objective is the end product, while Rationale is the starting point. Objective হলো শেষ, আর Rationale হলো শুরু।

Research topic: ঢাকা শহরের যানজট নিরসন
Rationale of the study: অসহনীয় যানজটে ঢাকা শহরের মানুষের জীবন ত্রাহী ত্রাহী, সমস্যাটি এতই প্রকট যে এই নিয়ে গবেষণা করার যৌক্তিকতা আছে।
Objective of the study: এই গবেষণা সঠিকভাবে হলে এর প্রাপ্ত ফলাফল ব্যবহার করে ঢাকা শহরের মানুষদের যানজট থেকে মুক্তি দেয়াই হলো গবেষণাটির Objective।

Rationale: কোন একটি টপিক কেন গবেষণাযোগ্য এবং তা পূর্ববর্তি গবেষণাগুলোতে অথবা সমাজে আরো কতটুকু তাৎপর্যপূর্ণ অবদান রাখতে পারবে এই বিষয়ের সংক্ষিপ্ত যৌক্তিক ব্যাখ্যাই হলো Rationale।
Objective: এই গবেষণার চূড়ান্ত লক্ষ্য কি সেটাই হলো Objective।

Research topic: জীবন কি কেবল জীব থেকেই হয়?
Rationale of the study: চারপাশে ছোট বড় অনেক রকমের জীবন দেখতে পাই, কিন্তু আমরা নিশ্চিত নই যে তাদের উৎপত্তি কি কেবল জীব থেকেই, না কি নির্জীব থেকেও জীবের উৎপত্তি হতে পারে? এই জ্ঞান অর্জনের যৌক্তিকতা রয়েছে। এটা একটি গবেষণাযোগ্য টপিক।
Objective of the study: গবেষণাটি সফলভাবে সম্পন্ন হলে আমরা নিশ্চিতভাবে জানতে পারবো যে, নির্জীব থেকে জীবের উৎপত্তি হয় কিনা। এটা আমাদের মানবজাতির জ্ঞানভান্ডারকে সমৃদ্ধ করবে। এই জ্ঞান ব্যবহার করে তা আমরা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে ব্যবহার করতে পারবো।
Method: এই গবেষণাটি করার জন্য আমি দুটা কাঁচের জার নিলাম ও তাতে কিছু পানি ঢাললাম। এবার ১নং জারে কিছু জীবানু রাখলাম ও ২ নং জারে কিছু রাখলাম না। এরপর দুটি জারকেই পুরোপুরি সিলড করে দিলাম।
Result: কিছুদিন পরে জার দুইটি খুললাম। দেখলাম ১ নং জারটিতে জীবানুর পরিমান বৃদ্ধি পেয়েছে, কিন্তু ২নং জারটিতে কোন জীবনেরই উদ্ভব হয়নি।
Findings: কেবলমাত্র জীব থেকেই জীবের উৎপত্তি হয়।

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.