প্রাচীন সমাজে নারীদের মান

প্রাচীন সমাজে নারীদের মান-
মর্যাদার প্রতি কোনো গুরুত্ব
দেওয়া হয়নি। সমাজে তখন নারীর
অধিকার ও মর্যাদা ছিল না। ইসলাম
ধর্মের বিধান অনুযায়ী বিবাহের
মাধ্যমে নারীর মর্যাদা ও গুরুত্ব
সংরক্ষিত হয়। ইসলাম নারীর অধিকার
ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠা করে নারী
জাতিকে মানবিক উন্নতি ও প্রগতির
বুনিয়াদ ঘোষণা করেছে। ইসলাম
ঘোষণা করে_সমাজে পুরুষের মতোই
নারীর অধিকার রয়েছে। তাই বিবাহ
বন্ধনের মাধ্যমেই নারী-পুরুষের
অধিকার নিশ্চিত হয়।
মুসলিম পারিবারিক আইন : মুসলিম
পারিবারিক আইন ইসলামী শরিয়তের
দ্বারা বিধিবদ্ধ হয়েছে। তবে যুগের
বিবর্তনে এবং ক্রমোন্নতির
সঙ্গে সঙ্গে সরকারিভাবে আইন ও
বিধির দ্বারা কিছু কিছু
নীতি নির্ধারিত হয়ে থাকে, এসব
আইন, বিধি ও নীতিমালার প্রণয়ন
যুগের প্রত্যক্ষ চাহিদা। আর এ
লক্ষ্যে ১৯৬১ সালে প্রণীত
হয়েছে মুসলিম বিবাহ আইন।
যাতে প্রত্যেক প্রাপ্তবয়স্ক নারী-
পুরুষের বিবাহ রেজিস্ট্র্রেশন
বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
বিবাহ রেজিস্ট্র্রেশন আইনে বৈধ
বিবাহের অবশ্য পূরণীয় শর্তগুলো:
বিবাহের যোগ্যতা : বিবাহ
করতে ইচ্ছুক পক্ষদ্বয়কে অবশ্যই
প্রাপ্তবয়স্ক/বয়স্কা এবং সুস্থ
মস্তিষ্কের অধিকারী হতে হবে। এ
ক্ষেত্রে পুরুষের বয়স নূন্যতম ২১ বছর
এবং স্ত্রীলোকের বয়স নূন্যতম ১৮ বছর
হতে হবে।
প্রস্তাব দান এবং কবুল : বিবাহ
করতে ইচ্ছুক পক্ষদ্বয়ের মধ্যে এক
পক্ষকে প্রস্তাব দিতে হবে এবং অপর
পক্ষ থেকে তা গ্রহণ করতে হবে।
প্রস্তাব দান ও গ্রহণ একই
মজলিসে কমপক্ষে দুজন প্রাপ্তবয়স্ক, সুস্থ
মস্তিষ্কসম্পন্ন পুরুষ
সাক্ষী কিংবা একজন পুরুষ ও দুজন
মহিলা সাক্ষীর সামনে হতে হবে।
এটিই বিবাহ বন্ধন সংগঠিত হওয়ার মূল
শর্ত।
সম্মতি : বিবাহের জন্য পাত্র
এবং পাত্রীর স্বতঃস্ফূর্ত সম্মতির
প্রয়োজন। বল
প্রয়োগে সম্মতি আদায়ে বিবাহ
বাতিল বলে গণ্য হবে।
বিবাহ রেজিস্ট্র্রেশন : বিবাহ
রেজিস্ট্র্রেশন বাধ্যতামূলক
করা হয়েছে। ১৯৬১ সালের মুসলিম
পারিবারিক আইনের বিধান
অনুসারে সরকার কর্তৃক নিযুক্ত নিকাহ্
রেজিস্ট্র্রার দ্বারা অবশ্যই বিবাহ
রেজিস্ট্র্রি করাতে হবে।
বিবাহ রেজিস্ট্র্রেশন ফি : সরকার
গেজেট নোটিফিকেশন
দিয়ে বিবাহের ফি নির্ধারণ
করেছে। বিবাহ রেজিস্ট্র্রেশন
ফি দেনমোহরের ওপর নির্ধারণ
হয়ে থাকে

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.