রুবাই ২৮, ২৯, ৩০, ৩১, ৩২, ৩৩, ৩৪

রুবাই ২৮, ২৯, ৩০, ৩১, ৩২, ৩৩, ৩৪
—————————- রমিত আজাদ

২৮।
উদাস মনে যখন তুমি এলোমেলো হাটবে সুখে,
ছিটিয়ে দেব সোনার ধুলি তোমার মধুর চলার পথে।
রূপ লাবণীর গুল বাগিচায় সুগন্ধী ফুল মৌসুমী,
বিছিয়ে দেব লাল গালিচা সম্ভারি নীল আসমানী।

২৯।
যখন দেখি তোমার ছবি ফেসবুকের ঐ টাইমলাইনে,
লাইক দিতে মন যায় ছুটে যায় আকাশপথের রেললাইনে।
ক্লিক করলেই ছবির পাশে উঠবে ফুটে লাইক আইকন,
তাও হয় না লাইক পাঠানো কয়েদখানায় বাঁধা যে মন!

লোকলজ্জার কয়েদখানায় আমরা সবাই বন্দী পাপী,
আইন ভাঙিবো নির্বিচারে হইনি আজো এমন অভী।
তবু জেনো লাইক দিয়েছি মনের বুকের টাইমলাইনে,
সুখের পাখী গাইছে গীতি দু:সাহসে গুলিস্তানে।

৩০।
জন্মেছিলে অনেক পরে ডাগর-আঁখি রূপ-লাবণী,
আমার তখন বয়স অধিক ধরার কোলে ম্লান চাঁদনি।
বয়স বিভেদ অধিক বেশী, শান্তি নাশি হতাশ তিথি,
চাই বা না চাই মিল হবে না, এটাই হলো ললাট লিপি।

৩১।
কার ক্ষমতা অধিক বেশী বুঝলি নারে সর্বনাশী,
সব কিছুরই শেষ রয়েছে জেনে রাখিস সর্বগ্রাসী।
শূণ্য তোরা, শূণ্য মোরা, শূণ্য হতেই আবির্ভূত,
যতই লুটিস দুহাত ভরে সবই হবে তিরোভূত!

৩২।
থাক না হলো পাণিগ্রহণ, প্রেমেই থাকি তৃপ্ত,
ভালোবেসেই জ্ঞান হারাবো, কসম খেলাম দৃপ্ত।
দুঃখ-শোকে টলবে না মন, থাক না দেহ অনেক দূর,
রাত্রী-দিবস, মিনিট-সেকেন্ড ভুলবো না সেই বাঁশির সুর!

৩৩।
চলছে মউজ চলতে থাকুক, শরাব চলুক রাত্রীভর,
সাকি-র নাচে জমজমাটি, প্রাসাদ কাঁপে থরারথর।
কালো টাকার গরমা-গরম, নীল পেয়ালায় অহংকার,
জেনে রাখিস ভাঙবে আসর, জ্বলবে প্রাসাদ ভয়ঙ্কর!

৩৪।
একটি হৃদয় করতে খুশী, এহেন বিশাল আয়োজন!?
সর্বদিকে নিভছে জীবন খোঁজ নিতে কি নেই প্রয়োজন?
চুনকালি দাও কাদের মুখে? হত্যা করো কাদের শিশু?
তওবা করেও পার পাবে না, পাপ-প্লাবনে ভরবে আঁশু!

————————————————–
তারিখ: ৩১শে অক্টোবর, ২০১৮
সময়: রাত ২টা ১৬ মিনিট

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.