সকল তত্ত্বই সংশোধনযোগ্য ও বিতর্কযোগ্য

সকল তত্ত্বই সংশোধনযোগ্য ও বিতর্কযোগ্য:
————————————————– ড. রমিত আজাদ

‘আইন দ্বারা মিমাংশীত কোন বিষয় নিয়ে বিতর্ক করা যাবে না । প্রতিষ্ঠিত ইতিহাস নিয়ে বিতর্ক করা যাবে না।’ ইত্যাদি, ইত্যাদি।

যারা এইসব বলেন ও এই জাতীয় আইন ইনট্রোডিউস করার পক্ষে, উনারা কি লেখাপড়া-টরা করেন না?
উনারা কি জানেন না যে জ্ঞানী সক্রেটিস-কে সেই সময়কার প্রচলিত আইন ও বিচার পদ্ধতিতে বিচার করেই মৃত্যুদন্ড দেয়া হয়েছিলো। তা সত্ত্বেও আড়াই হাজার বছর পরে নতুন করে বিচার বসিয়ে রায় দেয়া হয়েছিলো যে, সক্রেটিস নির্দোষ ছিলেন।

Positivism নামক দর্শন-টা সম্পর্কে উনারা কি জ্ঞান রাখেন? তারা কি জানেন যে, এই দর্শন বলে কেবলমাত্র বৈজ্ঞানিকভাবে যাচাইকৃত জ্ঞানকেই স্বীকৃতি দেয়া যাবে আর অন্য কোন জ্ঞান, যেমন অধিবিদ্যা ও আস্তিক্য ইত্যাদিকে স্বীকৃতি দেয়া যাবে না।

Positivism is a philosophical system recognizing only that which can be scientifically verified or which is capable of logical or mathematical proof, and therefore rejecting metaphysics and theism

আবার সেই Positivism-কে রিজেক্ট করা দর্শন Post-positivism রয়েছে। যেই দর্শন বলে, সকল পর্যবেক্ষণ-এরই ভুল এবং ত্রুটি আছে, ঠিক এই কারণেই সকল তত্ত্বই পুনর্বিবেচনার যোগ্য। অন্য কথায়, বাস্তবতা-কে নিশ্চয়তার সাথে জানার ক্ষমতা বা দক্ষতা মানুষের নাই।

all observation is fallible and has error and that all theory is revisable. In other words, the critical realist is critical of our ability to know reality with certainty.

উনারা কি জানেন যে বিজ্ঞানের ইতিহাসের দিকে তাকালে দেখা যায় যে অগণিত বৈজ্ঞানিক থিওরীকে পরবর্তিকালে রিভাইজ/রিজেক্ট করা হয়েছিলো অথবা তার সীমাবদ্ধতাকে আবিষ্কার করা হয়েছিলো।

তাদের জন্য উল্লেখ করবো খ্যাতিমান বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনস্টাইনের বিখ্যাত উক্তি” propositions of all other sciences are to some extent debatable and in constant danger of being overthrown by newly discovered facts.”

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.