অভিসারে শাড়ি

অভিসারে শাড়ি
——————— রমিত আজাদ

পছন্দের এক পোশাক শাড়ি;
হোক ষোড়শী নয় কিশোরী, পড়লে শাড়ি, তবেই নারী।
যখন হতাম অভিসারী, আসতো নারী, জড়িয়ে শাড়ি!
নারী হলো পুরুষ মনের মহান উপহার,
দৃষ্টি হবে, মুগ্ধ হবো; এই তো অভিসার!

শাড়িই যদি না পড়লো, আমার প্রেমিকা!
কেমন করে মুগ্ধ হবো, কানন বালিকা?
ঝলকে উঠে চমকায় রঙ মিষ্টি গালের কূপ।
ইন্দ্রজালী ঐ পোশাকে উপচে পড়ে রুপ!

জামদানি হোক নওভারী হোক, কিংবা মহিশুরী;
সব শাড়িতেই মানাবে তায়, মেঘনা পারের নারী!
প্রেয়সী মোর ঢাকাই তাঁতেও পরী বাধনহারা!
শাড়ির মায়ায় যাই হারিয়ে, প্রেমিক মাতোয়ারা!

মন মোহনায় সব প্রেয়সীই ছুটে আসা নদী,
সাগর আমি কেমনে হবো, শাড়ি না পাই যদি?
ডুববে নদী সাগর জলে, মিলবে ঢেউয়ে ঢেউয়ে,
শাড়ির ঢেউয়েই দুলবে হৃদয়, আকাশ ছুঁয়ে ছুঁয়ে!

শাড়ির সাথে নারীর আছে প্রাচীন যোগাযোগ,
‘শাড়ি ছাড়া নয় অভিসার’, আমার অনুরোধ!
প্রেয়সীরা আসতো যে তাই, শাড়ির শোভায় সেজে,

ভালোবাসার পান্না হিরে পেতাম শাড়ির ভাজে।

রচনাতারিখ: ৯ই এপ্রিল, ২০২১ সাল
রচনাসময়: দুপুর ১২টা ৫৮ মিনিট

Saree Dating
——————— Ramit Azad

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.