Categories
অনলাইন প্রকাশনা

অশ্রুসুধার বহ্নিজলে

অশ্রুসুধার বহ্নিজলে
——————————– রমিত আজাদ

আমি এখন ঘুমিয়ে যাবো, অশ্রুসুধার বহ্নিজলে;
কপট তাহার অভিমানে, মন জেগেছে নতুন ছলে!
দীপ জ্বালিয়ে আলোর মেলায় নব্য গাঁথার ভাবনায়,
কাব্য কথার জাল বুনে যাই, ছন্দ সুখের বন্যায়!

থাক না ধরার ছলাকলা, আমরা তো আর অসুর নই,
মন ছুঁয়ে মন গাঁথবে মালা, শিউলী বকুল মুখর রই!
নও পেয়ালার পুষ্পরসে, কোন শরাবী শুনবে ওজর?
দৃষ্টি যখন মদির হবে, কার পানে কে হানবে নজর?

দুই মুসাফির বৃত্ত ধরায়, পান্থশালায় ক্লান্ত পথিক,
মনস্তাপে শ্রান্ত তারা, পৃথ্বীতলেই প্রণয় রসিক।
শর্বরী তার তিমির-তলে, লক্ষ তারায় ঝলমলায়,
নির্ঝরি তার উছল স্রোতে, ফটিক জলে ছলছলায়!

সামনে পিছে সমালোচক তুলবে কথা রিক্ততায়,
উড়ো কথার ঝড়ো হাওয়ায় টলবো না তো নিঃস্বতায়।
তপ্তহিয়ার ঊর্মি দোলায়, দুলবে সাগর হৃদ্যতায়,

মান-অভিমান এই বেলা থাক, এসো হাসি শুদ্ধতায়!

রচনাতারিখ: ২৪শে মে, ২০২০ সাল
সময়: রাত ০৩টা ০১ মিনিট

In the Stream of Tears
————————— Ramit Azad

মন্তব্য করুন..

By ডঃ রমিত আজাদ

মুক্তিযুদ্ধের সেই উত্তাল দিনুলোতে, অজস্র তরুণ কি অসম সাহসিকতা নিয়ে দেশমাতৃকাকে রক্ষা করেছিল!
ব্যাটা নিয়াজী বলেছিলো, “বাঙালী মার্শাল রেস না”। ২৫শে মার্চের পরপরই যখন লক্ষ লক্ষ তরুণ লুঙ্গি পরে হাটু কাদায় দাঁড়িয়ে অস্র হাতে প্রশিক্ষন নিতে শুরু করল, বাঙালীর এই রাতারাতি মার্শাল রেস হয়ে যাওয়া দেখে পাকিস্তানি শাসক চক্র রিতিমত আহাম্মক বনে যায়।
সেই অসম সাহস সেই পর্বত প্রমাণ মনোবল আবার ফিরে আসুক বাংলাদেশের তরুণদের মাঝে। দূর হোক দুর্নীতি, হতাশা, গ্লানি, অমঙ্গল। আর একবার জয় হোক বাংলার অপরাজেয় তারুণ্যের।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.