অনলাইন প্রকাশনা
আঁখি পাতে রতিরাগ

আঁখি পাতে রতিরাগ

আঁখি পাতে রতিরাগ
——————————— রমিত আজাদ

সেই বিজনে কুহু কূজন, আমরা দুজন নেশায় চুর,
নিসর্গ তার দ্বার খুলিতো, দুইটি হৃদয় তৃষ্ণাতুর!
সেই পুরাতন খেলেছি খেলা, মৈথুনে তায় নিমগ্ন,
হংসমিথুন সুখ মাখিয়ে, সোহাগ রতির এ লগ্ন!

মদির আঁখির তুমুল তুফান রহস্যময় কামোচ্ছাস,
প্রণয়লীলার চরম সুখে, হৃদ মোহনায় জলোচ্ছাস!
ঐন্দ্রজালিক কাম বাসনায় অগ্নিশিখার প্রজ্বলন,
তপ্ত অধর আঁখির পাতে জ্বালতো আদিম উদ্দীপন।

বক্র অধর হাসির রেখায় উঠতো ফুটে চরম সুখ,
চন্দ্রিমা রূপ দৃ্প্ত হাতে ঢালতো সুধার তৃপ্তি মুখ।
প্রণয়লীলায় শান্তি অপার, ক্লান্তি যেথা ভিত্তিহীন,
শ্রান্তিবিহীন নিটোল নিশি, নিদ্রা সেথা অর্থহীন।

পাপড়ি মেলে ধরতো প্রসূন কলংকময় পালঙ্কে তায়,
রোমাঞ্চকর অনুভূতির আবেগ তিথি মালঞ্চে হায়!
পরশ সুখের প্রকম্পনে উন্মাদনায় মাততো রতি,
যায়না যে হায় আজো ভোলা শিহরণী দীপ্তি স্মৃতি।

উদাস দিবস দেখতো ক্রীড়া চিরন্তনী যুগল প্রীতি,
অনুরাগের সান্দ্র আবেগ হৃদ বলয়ে ঘুরতো নিতি।
চুম্বনে তার তরঙ্গ ধায় বিজলী ঘাতের হিজলী হিয়া,
মন্থনে তার অঙ্গ দোলায় অধর সুধার শিশির পিয়া।

প্রণয়লীলায় মত্ত আঁখি, সুখ দিয়েছে অপার্থিব,
নগ্নতা তার ধুপছায়া রাগ, মত্ততা তার নিসর্গিক!
জলকেলিতে সিক্ত আঁখি তৃষ্ণাতুরা মন কামিনী,

রতিরাগে ভাসতো ভীতি, নেশাতুরা দিন যামিনী।

রচনাতারিখ: ২০শে মে, ২০২১ সাল
রচনাসময়: রাত ০৩টা ৩৪ মিনিট

Love Shade in Her Eyelids
————————————— Ramit Azad

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.