কৃত্রিম নির্বাসনে

কৃত্রিম নির্বাসনে
———————– রমিত আজাদ

সে এক নাগরিক বিকেল!
আলো ঝলমলে রেস্তোরায়,
মসৃণ পালিশ করা হাল ফ্যাশনের ফার্নিচারে বসে,
কফির পেয়ালায় চুমুক দিতে দিতে ভাবছি।
এত কোলাহলের মাঝে, কে আমাকে প্রশান্তি দেবে?

সে এক নাগরিক বিকেল!
পশ্চিমা পোশাক পরিহিতা আমি
অত্যাধুনিক শপিং মলের ফুড কোর্টে চক্কর দিতে দিতে
নিজেকে হারাই আর, ইতি-উঁতি দৃষ্টি দেই;
আমাকে কি সে পাবে খুঁজে এত এত আধুনিকাদের মাঝে?

সে এক নাগরিক বিকেল!
বহুতল দালানের এস্কেলেটরে চেপে উপরে উঠতে উঠতে ভাবি,
ওপাশের সিঁড়ি বেয়ে নেমে যাওয়া স্বপ্নের রাজপুত্রের
চোখে কি পড়বো আমি?

এখানে দুই প্রহরের লোড-শেডিং-এ
মানুষের জীবন হাঁসফাঁস করে!
বিশুদ্ধ বায়ুর প্রবাহ
কবেই তো থামিয়ে দিয়েছে বহুতল অট্টালিকার বাধ!

কর্পোরেট রাষ্ট্রীয় কাঠামোর
কর্পোরেট দালান ও জীবনের মধ্যে
নিজেকে বন্দি করে ফেলেছি সেই কবে!
কৃত্রিম এই নগরীর মৃত্তিকাও নিরাবেগ সরসৃপের মতন শীতল!
এখানকার দূষিত ধুসর আকাশে ঠাঁই নেয়া চাঁদের হাসিটাও বাণিজ্যিক!

টার্ন-ওভার, প্রফিট, প্রোডাক্টিভিটি আর ফিজিবিলিটি-র মাঝে
রিয়েলিটি তো কবেই হয়েছে নির্বাসিত!
এমন এক কৃত্রিম নির্বাসনে

কেউ কি আমাকে একটি নির্মল হাসি উপহার দেবে???

রচনাতারিখ: ২১শে জুলাই, ২০২২ সাল
রচনাসময়: দুপুর ০৩টা ০২ মিনিট

In an Artificial Exile
———————— Ramit Azad

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.