ফাল্গুনী পুষ্পরাগ মুগ্ধতায়

ফাল্গুনী পুষ্পরাগ মুগ্ধতায়
—————————- রমিত আজাদ

কে দিলো এত রূপ?
এই সরল নিষ্পাপ সৌন্দর্য?
মাধুর্যে ভরা এত রঙ
কোন শিল্পীর তুলিতে এলো প্রাণ,
সাজাতে তোমাকে এমন বর্ণচ্ছটায়??

কে ফেরাবে চোখ বলো?
আমি?
কক্ষনো না, কক্ষনো না।
আমার আঁখি জানে রূপের কদর!
কর্ণিয়ার ক্যানভাসে আঁকে জলছবি।

বসনায় রূপসী তুমি?
নাকি বসন-কে করেছ রূপময় তুমি?
তোমার ধূপছায়া রূপের ছোঁয়া পেল যেই বসন,
তাকে বড় হিংসে হয় আমার!!!

বসন্তের উৎসবে পড়েছ
যে অসঙ্গত রঙ অঙ্গাবরণ,
তাতেই মাতাল হলো নিলাজ ফাগুন হাওয়া।
বর্ণান্ধ সমীরণ রূপসীর রূপ চেনে,
বসনের রঙ বোঝেনা!
তাই সে উড়ালো তোমার আঁচল,
লুটালো ভূষণ নলখাগড়ার বনে।
উৎসবের অজুহাতে ছুঁয়ে দিলো তব কায়া!
অশরীরীর সম্মতিহীন এই স্পর্শ
মেনে নিতে কষ্ট হয় আমার!!!

হোক না তুমি অতিথি এই প্রান্তরে,
তবুও তোমায় আপন করে নেব অন্তরে।
তুমি আসা অব্দি
আমার আপন নগরীতে
বিকেলের এমন উচ্ছাস কখনো দেখিনি,
কখনো দেখিনি এমন ভরা রৌদ্রের উল্লাস!

তোমাদের সবুজ শহরে
জানি পাখীদের গান ঝরে,
ভোরবেলা ফোটে ঘাসফুল,
রাতভর শিশিরের চুম্বনে।
আর আমার এই
জোৎস্না লুকানো বন্ধ্যা নগরীতে
শ্রীহীন রাত্রি নামে জোনাকী বিহীন।
পূর্ণিমা অমাবশ্যা সব তিথি অমানিশা!

তবুও আজ এই বৃক্ষহীন ইটের শহরে
তুমি রূপী একটি পরী নেমে এলো নিটোল মায়ায়।
কি অপরূপ তব শরীরী আলোর ছটা!
জমীনের মৃন্ময় রন্ধ্রে কত ঝিঁঝিরব তীব্রতা!
মূর্ছিত রাজপথে কম্পমান রৌদ্রের আভা,
প্রস্ফুটিত পুষ্পরাগ ইন্দ্রজালে সুললিত মূর্ছনা,
চোখ ফেটে ফেটে এলো ভালোবাসা,
এই প্রেম, স্নিগ্ধতা আর এই মুগ্ধতা!!!

———————————————–
তারিখ: ১৬ই ফেব্রুয়ারী, ২০১৯
সময়: রাত ২টা ৫৫ মিনিট

Falguni flowering charm
——————— Ramit Azad

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.