বইছে নদী, প্রণয়ধারা!

বইছে নদী, প্রণয়ধারা!

—————————-রমিত আজাদ

এই নদীটির মিষ্টি হাসি, সর্বনাশী!

ফুলের রাশি, রূপমানসী, বাজায় বাঁশি।

কুঞ্জ-বীথি, গাইছে গীতি, এইতো রীতি,

নদীর জলে বইছে নিতি, মধুর স্মৃতি!

সারাবেলা ভেবেই সারা, নদীর ধারা;

ঐ যে সারা, দিচ্ছে সাড়া; আত্মহারা!

নদীর পথিক, কূলের  অতিথ;

মন মোহনায়, ভাবছে অতীত।

পথ হারিয়ে, ঠায় দাঁড়িয়ে,

খুঁজছে দিশা, জলের নিশা।

লজ্জ্বা রাঙা, দুই কপোলে, দোদুল দোলে;

অরুণ উষা। দারুন তৃষা, জলকে চলে!

দগ্ধ প্রাতে, এই নদীতে, মুগ্ধ আঁখি,

উড়ছে বায়ে, অর্ক ছায়ে, মুক্ত পাখি।

মন ভ্রমরার গুঞ্জরণে, কুঞ্জ বনে,

ডাকছে প্রাণে, কোন তিয়াসী, ঘোর প্লাবনে?

এই সলিলে, নাও চলিলে, বাইবে খেয়া?

মন সোহাগী, কার বেহাগী? নামায় দেয়া?

নদীর উপর, টাপুর টুপুর, বাজছে নূপুর;

বারির নাচে, জলকে যাচে, অলস দুপুর।

আকাশ জুড়ে, আসলো উড়ে, নেশার ঘোরে;

মেঘের ছায়া, রঙের মায়া, গগন ফুঁড়ে!

আজ অভিমান, কাল প্রতিদান, ঐকতানে;

যাইছে বয়ে, ফিরছে ধেয়ে, মনের টানে।

নয়ন জলেও বইছে ধারা, পাগলপারা!

সেই অবধি, বইছে নদী, প্রণয়ধারা!

——————————————————-

রচনাতারিখ: ০২রা সেপ্টেম্বর, ২০২২ সাল

রচনাসময়: রাত ০৩টা ২৮ মিনিট

Flowing river, flow of love!

—————————- Ramit Azad

(কবিতার প্রচ্ছদের ছবিটি জান্নাতুল ফেরদৌস সারা-র।

ছবিটি কবিতায় ব্যবহার করার অনুমতি দেয়ায় উনাকে ধন্যবাদ)

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.