রুবাই ২০১, ২০২, ২০৩, ২০৪, ২০৫

রুবাই ২০১, ২০২, ২০৩, ২০৪, ২০৫
———————————- রমিত আজাদ

২০১।
তুমি আছো, আমিও আছি, তবু যেন কেউ নাই!
এত বড় বিশ্ব নীড়ে, তোমার আমার খোঁজ নাই?
কার হৃদয়ের ক্ষত মুছে, ঘুম ভাঙিয়ে কে জাগে?
মান-অভিমান তুলে রেখে, কে খুঁজবে কার আগে?

২০২।
চোখের জলের কালি দিয়েই রুবাই লেখা যাবে,
ছোট্ট চোখেই সাগর আছে, লক্ষ মানিক পাবে।
এক আঘাতেই সাগর হলো দুইটি আঁখির ধারা,
সাগর জলে তোমার ছবি, হাতছানি দেয় তারা।

২০৩।
গোলাপ ফোটে খুকীর মুখে, বাগান ভরা পুষ্প!
পূর্ণ তিথির চন্দ্র হাসে, আকাশ ভোলে দুঃখ!
দৃষ্টি যদি মিষ্টি ছড়ায়, বাতাস কি আর কাঁদবে?
পরশ-পাথর যাদুর ছোঁয়ার স্বর্ণ-কনক বাঁধবে!

২০৪।
মসৃণ তার রেশমী চুলে স্বর্ণালী রোদ ঝলকে ওঠে,
মুক্তো ঝরা হাসির রেখায় শুভ্রতনু শিউলি ফোটে।
নীলাম্বরী আঁচল তাহার বিজয় নিশান তীব্র উড়ে,
পরাজিতের দুঃখ-ত্রাসে তপ্ত হাওয়ায় হৃদয় পুড়ে!

২০৫।
পাষান আমি, কুসুম তুমি, বুঝিনি তা অনেক কাল,
তোমার মনটা মিষ্টি ছিলে, আমি ছিলাম শুধুই ঝাল!
অপরাধ সব আমার ছিলো, তুমিই ছিলে ফুলকলি!
এখন শুধু চাইবো ক্ষমা, জোড়হাতে তো তাই বলি।

—————————————————————
রচনাতারিখ: ২৫শে নভেম্বর, ২০১৯
সময়: রাত ১টা ১৭মিনিট

Rubai 201, 202, 203, 204, 205
——————— Ramit Azad

পাওনা-দেনা হিসেব খাতা,
ব্যাংক ও বীমার চেকের পাতা,
এসব বুঝে ভালোবাসা?
না থাকে তায় মনের আশা।
নৈরাশ্যে হৃদয় ভার,
তাই নাই তার দাবীদার!

অন্ধকারে ছুটছে ও কি?
ভালোবাসার কীট জোনাকি।
ঝিকমিক সে জ্বলছে দেখে,
আলোর রেখায় ছবি এঁকে।
আঁধার ঘরের খুলছে দুয়ার,
ছবির রঙে প্রেমের জোয়ার।

—————–রমিত আজাদ

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.