রুবাই ৪৬৬-৪৭০ (Rubai – Ramit Azad)

রুবাই ৪৬৬-৪৭০
—————————- রমিত আজাদ

৪৬৬।
হাসির নেশায় ঘোর লেগেছে রূপ-তিয়াসীর চোখে,
মিষ্টি হাসির ঝর্ণাধারায়, বাণ ডেকেছে বুকে।
দীর্ঘ শীতের হিমের পরে, ব্যাকুল শতদল,
ফুল্ল-সাকির আঁখির কোনে শ্রাবণ মেঘের ঢল!

৪৬৭।
কাঠের বুকে রঙ-তুলিতে শিল্পী আঁকেন ছবি,
ছবির রূপে ঘোর লাগে তাই, কাব্য লেখেন কবি।
বিন্দু থেকে বৃত্ত হলেই, আল্পনা হয় চেনা।
অচেনা এক কল্পলোকের গল্প বলা মানা!

৪৬৮।
চেনা নারীর অচেনা সুর গাইছে পাখী সুখে,
তার কি হবে, যার নিশিদিন কাঁদছে আঁখি দুঃখে?
যার চেনা মন, অচিন হলো, সেই সে ঝড়ের পর,
ঘোর পলাতক ধুমকেতু এক আপন হয়েও পর!

৪৬৯।
কোন নদীটির স্রোতের টানে নৌকা ভাসে জলে?
কোন রূপসীর রূপ পিয়াসী, ডুবছে রূপের ঢলে?
কোন সাগরে ছুটছে নেশায়, ঘোর শ্রাবণের ধারা?
কোন কাননের ফুলের ঘ্রাণে, হৃদয় সায়র হারা?

৪৭০।
ঘোর কুয়াশায় সূর্যোদয়ে আলোর রাশি হাসে,
শৈলগিরির চূড়ায় চূড়ায় মেঘ-মালিকা ভাসে।
অলিন্দে তাই ফুল-বালিকা দেখছে নয়ন ভরে,

বিস্মিত তার আঁখির পাতে কাশ-বীথিকা নড়ে!

রচনাতারিখ: ২৯শে জুলাই, ২০২১ সাল
রচনাসময়: সকাল ০৭ টা থেকে দুপুর ১১টা১৮ মিনিট পর্যন্ত

Rubai 466-467
—————– Ramit Azad

No description available.

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.