রুবাই ৫০৬-৫১০ (Rubai Ramit 506-510)

রুবাই ৫০৬-৫১০
———————– রমিত আজাদ

বিষয়: ছোঁয়া

৫০৬।
হাত ছুঁয়েছি, এইটুকুই তো! তাতেই কেন উঠলে কেঁপে?
হাতের ছোঁয়ায় মন ছুঁয়েছে, মনের কথা রয়না চেপে!
একটি ছোঁয়ায় বিজলী জ্বলে, তরঙ্গ তার ভূবন ছাপে!
হৃদয় সাগর ভেসেই গেলো! গভীরতা দেখবে মেপে?

৫০৭।
পুরুষ্টু দু স্তনের গিরি, দৃষ্টি টানে স্বয়ংক্রিয়!
গিরির নিচেই হৃৎপিন্ড, অবিরতই না নিষ্ক্রিয়।
কি ছুঁতে চাও, বৃন্ত গিরির? দেহী সুখের আস্বাদ পেতে?
হৃদয়টাকে ছুঁয়ে দেখো, মনের দখল পাবেই তাতে!

৫০৮।
হ্যাঁ ছুঁয়েছে বৃন্ত দু’টি, আরো ছুঁলাম অধর যুগল,
নগ্ন কায়ার সব ছুঁয়েছি, রয়নি বাকি শ্রোণী সুডোল।
ছোঁয়াছুঁয়ির প্রাচীন ক্রীড়ায়, অঙ্গ হ্রদে ঝড় বয়ে যায়,
এত ঝড়েও হৃদয় সায়র, নিথর কেন, বলবে কে তায়?

৫০৯।
ছোঁয়া ছিলো দৈবক্রমে, হোচট খেয়ে ধরেই ফেলা!
তুমি কেমন লাজে রাঙা, হয়েছিলে অমন বেলা!
ছলকে ওঠা রাঙা কপোল, দেখেই আমি বুঝেছিলাম,
পড়ে গেছো তুমি ধরা, তোমার চোখেই দেখেছিলাম!

৫১০।
আমার ছোঁয়ায় যেমন তোমার কাঁপতো দেহ, কাঁপতো হৃদয়,
তার ছোঁয়া কি তেমনি তোমার অঙ্গটাকে দাঁপিয়ে বেড়ায়?
চরণ থেকে কেশের সিঁথি, ওঠে কি কেঁপে ছোঁয়ায় ছোঁয়ায়?

নাকি তেমন তিক্ত পরশ, রিক্ত তোমায় শুধুই কাঁদায়?

রচনাতারিখ: ১৬ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ সাল
রচনাসময়: রাত ০১টা ০৩ মিনিট

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.