রুবাই ৫১৬-৫২০ (Rubai Ramit 516-520)

রুবাই ৫১৬-৫২০
————————- রমিত আজাদ

৫১৬।
নীলিমা গগনে তোমার নয়নে, ভাসিছে মেঘেরা সুখে;
কিছু পাখী যেন উড়িয়া ফিরিয়া খুঁজিতেছে নীড় চোখে!
দাওনা দুমুঠো ঘরের ঠিকানা, তোমার লোচন বৃত্তে;
আশ্রয় যদি মিলে যায় তাতে, প্রশান্তি পাবো চিত্তে!

—————————— রমিত আজাদ
১০ই অক্টোবর, ২০২১ সাল

৫১৭।
হিম হয়ে যায় দৃষ্টি যেথায়, জোৎস্না যেথায় চুপ;
ধ্যান ভাঙাতে উঠলো ফুটে সন্ধ্যাতারার রূপ।
মৌন ঋষি ধুমকেতুটা, চোখ মেলেছে আজ,
তার আঁখিতে ঝড় তুলেছে চাঁদকন্যার সাজ।

———————— রমিত আজাদ
২৯শে অক্টোবর, ২০২১ সাল

৫১৮।
নৌকা ভাসাও নদীর দেহে, পান করো তার জল;
কান পেতেছ নদীর বুকে, শুনতে ব্যাথার ঢল?
বৈঠা গেঁথে করছো আঘাত, চলছে তোমার তরী;
চাইলে নাতো শুনতে কভু, নদীর দুখের সারি!

৫১৯।
ক্ষণে ক্ষণে মনে হয়, চুপি চুপি নিরালায়,
আকাশের নীলিমায়, মধুস্মৃতি বয়ে যায়।
প্রকৃতির উদারতা, দেখে দেখে বড় হয় স্বপ্ন।
দিবারাতি মুখরতা, এমনই যে বয়ে যায় লগ্ন।

৫২০
একের অধিক ছিলো আমার ভালোবাসার নারী;
এক জীবনেই অনেক ফুলের সুবাস নিলাম ভারী!
গোলাপ, যুঁথী, চম্পা, বেলী, সব ফুলই তো কামী!

তৃষ্ণা মেটে সব নদীতেই, সব মণিরাই দামী।

রচনাতারিখ: ২৯শে অক্টোবর, ২০২১ সাল
রচনাসময়: রাত ১১টা ৩৯ মিনিট

Rubai 516-520
————- Ramit Azad

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.