রুবাই ৫২১ – ৫৩০

রুবাই ৫২১ – ৫২৫

——————— রমিত আজাদ

রুবাই ৫২১।

পদ্মবিলে ফুল ফুটেছে লাল-সাদা তার রং!

আকাশ নুয়ে দেখছে তাকে, ছলছবিতে ঢং!

চোখদুটি তার চাইছে আকুল, পড়ছে জলে ছায়া;

প্রতীক্ষাতেই যায় কি বেলা? চোখেই জলের মায়া!

————————- রমিত আজাদ

০৯ই জানুয়ারী, ২০২২ সাল

রুবাই ৫২২।

চাঁদটা থেকে ঝরছে অঝোর জোৎস্না রাশি রাশি,

চন্দ্র বলে, “মর্ত তোমায় কত্ত ভালোবাসি!”

অভ্র বলে, “বক্ষে আমার মিলবে তোদের ঠাঁঁই”,

চাঁদ পৃথিবীর এই মিতালী  অনন্তকাল চাই।

৫ই ফেব্রুয়ারী, ২০২২ সাল

রুবাই ৫২৩।

দৃষ্টির কাছাকাছি বৃষ্টির টুপটাপ,

সারা ভেজে সুধা নীরে, একদম চুপচাপ!

দোল খায় দোলনাতে সারামণি স্নিগ্ধ,

বাগিচার ফুলগুলি তাকে দেখে মুগ্ধ!

——————— রমিত আজাদ

২২শে আগস্ট, ২০২২ সাল

রুবাই ৫২৪।

কার সে নয়ন কার আলোকে দেখছে দিনের ছায়া?

কার রূপে আজ স্নিগ্ধ হলো, শ্রাবণ মেঘের মায়া?

উঠুক না ঝড়, এই বেলাতে, উড়ুক না তার কেশ!

ঝড়ের মাঝেই বৃষ্টি ঝরে হোকনা কেঁদেই শেষ!

রুবাই ৫২৫।

কালো আঁখির কালো সাগর, কালো জলেই লেখা;

কালো শাড়ীর কালো ছায়েই, কাব্যকথা গাঁথা।

ঝলসে ওঠা রূপের বাহার, কালো রঙেই ঢাকা;

কালো তো নয় কালের মেয়ে, আলতা দুধে মাখা!

——————————- রমিত আজাদ

১৫ই সেপ্টেম্বর, ২০২২ সাল

———————————————————–

প্রকাশনাতারিখ: ১৫ই সেপ্টেম্বর, ২০২২ সাল

প্রকাশনাসময়: দুপুর ০১টা ১১ মিনিট

রুবাই ৫২৬।

কলিরা আজ ফুল হতে চায়, অধীর পরাণ ভরে;

মায়াবিনীর হাঁতের ছোঁয়ায় ফুটলো থরে থরে।

গোলাপরাণীর রূপের শোভায় উজাল হলো বন,

লাল গোলাপের রঙ মাখিয়ে রঙিন হলো মন।

—————————— রমিত আজাদ

৮ই ফেব্রুয়ারী, ২০২২ সাল

রুবাই ৫২৬ – ৫৩০

————————– রমিত আজাদ

রুবাই ৫২৬।

কলিরা আজ ফুল হতে চায়, অধীর পরাণ ভরে;

মায়াবিনীর হাঁতের ছোঁয়ায় ফুটলো থরে থরে।

গোলাপরাণীর রূপের শোভায় উজাল হলো বন,

লাল গোলাপের রঙ মাখিয়ে, রঙিন হলো মন।

—————————— রমিত আজাদ

৮ই ফেব্রুয়ারী, ২০২২ সাল

রুবাই ৫২৭।

লাল জামাতে জরির বুনন, আলতা রাঙা ঠোঁট;

স্বর্ণকেশে ঝলকে আলো, আঁখির তারায় রোদ।

পেলব বাহুর চাঁদনী মায়া, জাগায় মনে তৃষা,

ললাটে তার ওষ্ঠ ছুঁয়ে, হারিয়ে ফেলি দিশা!

রুবাই ৫২৮।

আয়না তুমি “আয়না” বলো, দেখবে কেমন হাসি!

গয়না পড়ে দেখবো তোমায়, ঝলকে রূপের রাশি!

রয়না আমার অঙ্গভূষণ, হয়না বৃথাই রাজি;

আয়না তুমি আছো বলেই, এত্ত করে সাজি!

রুবাই ৫২৯।

ওমা তুমি পার্শী মেয়ে? আর্শী দেখে হাসো?

লাল কপোলে আনার কলি? সাজতে ভালোবাসো?

কি রেখেছ মৃৎ কলসে, শিরিন শরাব সুরা?

তোমার রূপের শরাব পিয়ে, হলাম নেশাতুরা!

রুবাই ৫৩০।

হায়রে আমার সখের চাকা, তোর চক্রে ঘুরে;

পা ভেঙেছি পথের পরে, তোর গা থেকে পড়ে!

আপাতত দিলাম ছুটি, থাক কিছুদিন সুখে;

দেখিস আমি সুস্থ হলে, কেমন ঘোরাই তোকে!

———————————————————–

রচনাতারিখ: ১৫ই সেপ্টেম্বর, ২০২২ সাল

রচনাসময়: বিকাল ০৪টা ৩৭ মিনিট

Rubai 525 – 530

———————– Ramit Azad

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.