সব কবিতাই তোমার ছবি

সব কবিতাই তোমার ছবি
———————————- রমিত আজাদ

কুজ্ঝটিকা-কূহেলিকার হিম রহস্য আড়ালে,
সপ্ত পাথার তের নদীর দূর পারেতে হারালে।
সবাই যখন পড়ছে সুখে আমার লেখা কবিতা,
তুমিই তখন কাব্য লেখ, কোন বিরহে ভাবি তা!

নিদ্রাসুখে বিশ্ব-নিখিল, চন্দ্র শুধু তন্দ্রাহারা;
শশীর সাথে জাগি নিশি আমি আরেক ভাগ্যহারা!
“হারিয়ে গেছে অনুভূতি” তুমি যেদিন বললে আমায়,
অশ্রু আমার উথলে উঠে বাষ্প হলো জ্যোৎস্না-ধারায়!

তোমার প্রেমের সুধা-গরল রক্তে আমার রয় মিশে,
তোমার স্মৃতি কাঁদায়-হাসায় এটাই বা আর কম কিসে?
দস্যু ছিলাম তাইতো আমি লুট করেছি সব তোমার,
কোনটা তুমি রাখলে মনে, ‘অপরাধ’ না ‘প্রেম’ আমার?

তোমার ব্যথায় ভাসি-ডুবি, তোমায় স্মরেই গান রচি,
অর্থবিহীন জীবন নিয়েই মরার মতই আজ বাঁচি।
ভুল করে তো ফুল ফোটে না! পুষ্প হাসে অর্থময়!
বৃষ্টিধারাই ভরায় নদী, ছোটায় তাকে ছন্দময়!

অপেক্ষা কি খুব যাতনার, তৃষ্ণা চাপা কষ্টকর?
আপন ছিলো যে জন আমার, সেই যে হলো পর!
মালা বদল হোক বা না হোক, বধূই ছিলে মোর,
পালা বদল ছিঁড়লো হৃদয়, ভাঙ্গলো মনের ঘর!

প্রিয়া কাঁদে বিস্মরণে, নি:সারিয়া জলছবি রূপ,
নিরম্বু মেঘ বিস্ফারিছে, বাষ্পীভূত সৌরভী ধূপ।
ঘর বাঁধার এক স্বপ্ন ছিলো, এক ঠিকানার সুখসদন,
দু’জনার আজ দুই ঠিকানা! দুই নিবাসে দুইটি মন!

রাত গভীরে কান পেতে দাও, শুনতে ধ্বনি অম্বরে;
কান্না ভেসে ঢুকবে কানে, ঝড় উঠাবে রোজ ভোরে।
জানতে চাও কি অধীর হয়ে, কেন আমি হলাম কবি?
অসঙ্কোচে জানাই তবে, ‘সব কবিতাই তোমার ছবি’।

————————————————————————-

রচনাতারিখ: ১৪ই নভেম্বর, ২০১৯ সাল
সময়: সন্ধ্যা ৬টা ৪৩ মিনিট

মন্তব্য করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.