Categories
অনলাইন প্রকাশনা কবিতা

মমতাজ

    — মারুফ সরদার

একদিন ভাবো বসে আছি একা

তুমি আমি পাশাপাশি

মনের ভিতর ভালবাসা ছিল

পুরোপুরি ঠাসাঠাসি

বায়না ধরে বললে তুমি

হাড়াবে দুজনে আজ ?

ভাবি আমি বসে কোথায় হাড়াবো

নিয়ে এই মমতাজ

রাজ্যহীন শাজাহাণ আমি

তৃপ্ত করী কী ভাবে ?

জিজ্ঞাসীলাম মমতাজ তুমি

বল আজ কোথা যাবে ?

খানিকক্ষণ চুপ থেকে বলে

আমার এই মন চায়

তোমাকে নিয়ে কাটাবো সময়

কোনও এক নিরালায়

ভাবতে থাকি অস্থির হয়ে

কোথা নিয়ে তাকে যাব

এই পৃথিবীর যেখানেই যাই

মানুষের দেখা পাব

মমতাজ সম সঙ্গিনী মোর

কি করে কাঁদাবো তাকে ?

কত শাজাহান তাকে পাইতে

বসে আছে বাঁকে বাঁকে

চিন্তিত হয়ে আকাশের পানে

তাকিয়ে ছিলাম দূরে

একখণ্ড মেঘকে দেখি

যাচ্ছে আকাশে উড়ে

ইশারায় আমি মেঘকে ডেকে

বলি ও মেঘের দূত

জানো কি তুমি কোন সে ভূমি

নিশ্চুপ অদ্ভুত ?

মমতাজ মোর বায়না ধরেছে

নিরালায় কিছুক্ষণ

কাটাবে সময় নিয়ে যাব তারে

করেছি যে আমি পন

মেঘের খণ্ড ইশারায় বলে

উঠে বস মোর পৃষ্ঠে

মেঘের দেশে নিয়ে যাব আজ

দেখবে যুগল দৃষ্টে

খুশিতে হয়ে আত্মহারা

শাজাহান মমতাজে

চড়িয়া বসি নিরালায় যেতে

মেঘের পঙ্খিরাজে

অন্তহীন মেঘের দেশেতে

ভাসার কিছুটা পরে

মমতাজ তার কোমল হাতে

আমার হাতখানা ধরে

শাজাহান আমি কল্পনাতে

ভাবনার খেয়াপারে

মেঘেতে এক তাজমহল গড়ে

উপহার দেই তারে

মেঘ রঙা চুল উরছিল সেথা

মেঘমাখা হাওয়া লেগে

কাশফুল ভেবে চুলের ছোঁয়ায়

উঠলাম আমি জেগে

মমতাজ মোর বুকে মাথা রেখে

মৃদু কণ্ঠে বলে

আমার বুকের ভিতরটা কেন

কয়লার মত জ্বলে ?

বললাম কত কষ্ট দিয়েছি

পুষছিলে এতদিন-ই …

এক মুহূর্ত বুকে মাথা রেখে

করে দিলে মোরে ঋণী

এত দুঃখ দিয়েছি তবু

ভালবাস তারপরও ?

কি এক জাদু আছে তোমাতে

আমাকে পাগল কর

একি অনাবিল সুখ তুমি দিলে

নিরালায় ডাকি  আজ

মেঘের বুকেতে শাজাহান শুয়ে

তার বুকে মমতাজ ।

Categories
অনলাইন প্রকাশনা কবিতা

গনতন্ত্র মুক্তি পাক

মারুফ সরদার

নগর জুড়ে ফুঁসছে সবাই, আজকে সবাই দিশেহারা

দেশটাকে আজ জিম্মি করে , বল শুধু বল তোরা কারা

গণতন্ত্রের নাম ভাঙ্গিয়ে  , তন্ত্র বানাস বাপ বেটাদের

মুখোসটা আজ খুলব তোদের , রুখবি কে আয় এই আমাদের

ন্যায্য কথা বললেই আজ , ঢোকাস তোরা চৌদ্দ শিকে

আজ যে তোদের সময় হল , আসছি ধেয়ে চতুর্দিকে

হই হই আজ রব তোল সব , ধরতে এসব মুখোশধারী

গণতন্ত্রের লজ্জা তোরা , দেখব তোদের খবরদারী

কি করে আজ আটকে রাখিস , পুলিশ দিয়ে বন্দিশালায়

দেখব তোদের আত্মাটা আজ , জ্বলছি তোদের দহন জ্বালায়

দেয়ালে আজ পিঠ ঠেকেছে , ধৈর্যের আর নেই কোন পথ

আজকে তোদের অত্যাচারের , জবাব দেয়ার করেছি শপথ

হই হই আজ রব তোল সব , ধরতে এসব নেত্রী নেতা

পায়ের তলে পিষব তোদের , জেগেছে আজ এই জনতা

তিনশ জনের কাছে আজই , ষোল কোটি নির্যাতিত

আসছি মোরা আসছি তোদের , হৃদয় করতে প্রকম্পিত

হই হই আজ রব তুলে সব , ধান্দাবাজের মুখোশটা খোল

ক্ষমতার ঐ চেয়ার থেকে , টেনে হিঁচড়ে তোল সব তোল

সন্ত্রাসী নস তোরা কেউই , কথায় কথায় মিথ্যাচার

বিশ্বজিৎকে  কে মেরেছে , প্রমান কর এই সত্যটার

র‍্যব পুলিশ আর বিজিপিকে , বানিয়ে নিজের সন্ত্রাসী

লিমনের এক পা কেটে নেস , করতে শুধু উল্লাসই

জামাইকে আজ র‍্যব বানিয়ে , জান কবজে পাঠাস তোরা

৭ খুনের ঐ নারায়নগঞ্জের , হুংকার তাই বিশ্বজোড়া

আজ জেগেছে এই জনতা , পার পাবি না কেউ তোরা আজ

হই হই আজ রব তোল সব , ধরতে এসব ধান্দাবাজ

নুর হসেনের রক্ত মেখে , আসছি মোরা আসছি ধেয়ে

রুখবি কে আয় বাপের বেটা , গণতন্ত্রের নাম ভাঙ্গায়ে

গণতন্ত্রের মুক্তি নিয়ে , ফিরব আবার মায়ের কোলে

আত্মাটা আজ দেখব তোদের , দেখব এবার কে হাত তোলে

হই হই আজ রব তোল সব , বুকেই লিখে এক মন্ত্র

কোন শক্তি পারবে না আজ , রুখতে মোদের গনতন্ত্র

Categories
অনলাইন প্রকাশনা কবিতা

ওয়াদা

—মারুফ সরদার

ধর একদিন তোমার হাতটি আমার হাতেতে ধরে

নিঃশব্দ এক পথের শেষে বসেছি আপন করে

হেয়ালি মনের খেয়ালি চাওয়ার তিব্রতা বুঝে আমি

হাতখানা মোর বুকে চেপে ধরে বুঝেছি তা কত দামি

মনে হল যেন বুকেতে তোমায় শেকল পরিয়ে রাখি

দেখব আমি তোমাকেই শুধু মেললেই দুই আঁখি

নিশ্চুপ তুমি কথা বলনি চোখ ছিল টলমল

ভালবাসার এক উত্তাল স্রোতে ভাসছিল চোখে জল

প্রতিটি জলের ফোটায় দেখেছি না পাওয়ার বেদনায়

বলছিলে যেন কোনদিন তুমি হারিওনা অজানায়

দিয়েছিলাম কথা সেইদিন আমি তোমার মুখটি দেখে

হব না আমি অন্য কারো এই তোমাকে রেখে

লোকজন নেই পথের ধারেতে শুধু ছিল দুটি মন

দুটি হৃদয়য়ই বুঝেছিল শুধু হৃদয়য়ের আলোড়ন

এমনই সময় করেছিলে পন মৃত্যু যদিও আসে

শুধুই আমার থাকবেই তুমি অন্তিম নিঃশ্বাসে

দুজনের সেই কথা দেয়া নেয়া আজ যে শুধুই স্মৃতি

ভালবাসা বলে শেষ নেই কিছু আছে শুধু বিস্তৃতি

Categories
অনলাইন প্রকাশনা কবিতা

আকুতি

–মারুফ সরদার

ভালবাসা মানে ভাসমান কিছু অনুভূতি

অথবা খুব একলা লাগা রাত্রিবেলা

তোমার হাতটি ধরার মিছেই আকুতি

নয়তো তোমার চোখে চেয়ে থাকা আমার অদৃশ্য দৃষ্টি

যা কিনা বার্থ ছিল সিক্ত করতে

শুকনো মনের উঠোন খানা ঝরিয়ে অঝোর বৃষ্টি

কেউ বলে ভালবাসা নাকি সীমাহীন স্রোত নিয়ে

ছুটে চলা কোন ভাঙ্গা বাঁধ

তুমি কি ভাব আমার জানতে ইচ্ছা করে

এ আমার সুপ্ত মনের গুপ্ত সাধ…

আজও মেঘ এসেছিল বৃষ্টির হাত ধরে

ওরা বলে ভালবাসা নাকি কারো অপেক্ষায় থাকা

তেষ্টা মেটানো এক ফোঁটা অনুভূতি

তবে খুব একলা লাগা একান্ত ক্ষণে; মন বলে

ভালবাসা মানে তোমার চোখে চেয়ে মরণ পাওয়ার আকুতি