বিশ্বনবী, দ্বীনের নবী

বিশ্বনবী, দ্বীনের নবী————————- রমিত আজাদ আমার নবী, দ্বীনের নবী, ধ্যানের ছবি, মহীয়ান;রাসুল তিনি, আমীন তিনি, হাবিব-এ-খোদা, দো-জাহান।শেষ বিচারে চাইনা সাজা, চাই করুণা, ইয়া রাহ্‌মান।রোজ হাশরে বললে নবী, পেতে পারি পরিত্রাণ। হেরার গুহায় ধ্যানের নবী, পেলেন ওহী, আল-কুরআন;পড়েন আয়াত উম্মি নবী, জ্ঞানের কিতাব আল-ফুরকান!পাক কুরআনের তিনিই গ্রাহক, তিনিই তাহার প্রচারক;নূরের কিতাব সরায় আঁধার, দ্বীন শেখালেন সৎ-ঘোষক। আল-মুয়াজ্জাজ পড়েন ধ্বনি বিশ্বাসেরই নিদর্শন;আল-মুতাওয়াক্কিল […]

ও নদী তোর রূপের ঢলে——————————– রমিত আজাদ ঝর্ণা জলে পড়লো ছায়া গোলাপরাণীর মিষ্টি কায়ার,দিচ্ছে উঁকি জল ছাপিয়ে বর্ষাপরী মেঘের মায়ার।পদ বোঝেনা পদ্মপাতা, তাও লিখেছে কাব্য কত!ঝিলের জলে বান ডেকেছে শাপলারাণীর পাঁপড়ি যত। জল থৈ থৈ বিলের বুকে মনকিশোরী কাটছে সাঁতার,জলভেজা তার তাতের শাড়ি জেল্লা ছড়ায় সরিয়ে আঁধার!মেঘডাকা সেই দুপুরটাতে, বাজছে নূপুর গাঙের বাণে,টুপ টুপ টুপ বৃষ্টি পড়ে বাজনা বাজায় নদীর […]

মধুমণির কাতর আঁখি

মধুমণির কাতর আঁখি—————————— রমিত আজাদ আজ বিকেলে দেখেছি তাকে, ভিন্ন রূপে বেশ!না ছিলো সাজ, না ছিলো রঙ, না বাঁধা তার কেশ!আটপৌরে সেই আদলেই ঝলমলে তার রূপ!হার মেনেছে হুরপরীরা, ফুলপরীরা চুপ! বিমর্ষতায় মুখটি ভরা, ক্লান্তি মাখা চোখ;সুখ পালিয়ে অসুখ হলো, শরীর ভরা দুখ!মধুর লোচন অমৃত তাও, দুর্বল তার কায়া;নেই হাসি তার মায়ার মুখে, বিষন্নতার ছায়া! রঙ ছিলোনা আকাশটাতে আজ বিকেলের শেষে;সব […]

ভরিয়ে দেব চিত্ত

ভরিয়ে দেব চিত্ত————————- রমিত আজাদ তরঙ্গ তো বলেছিলো, “আর্জি আছে একটি,আমায় নিয়ে কাব্য লিখুন, একজোড়া কি সাতটি।”মায়াবী তার দৃষ্টি কেমন মধুর মতন মিষ্টি!কথা দিলাম, সেই কবিতায় রাঙিয়ে দেব দেশটি! মধু আমার, তোমার কথা ফেলতে কি আর পারি?মন ভুলিয়ে কবেই তুমি প্রাণ করেছ ভারী!চাওনি কিছুই, বিত্ত কিবা অর্থ কাড়ি কাড়ি;একটু শুধু শব্দমালায় চাইলে কথার সারি। অর্থাভাবে দুর্ভাগা তাই রত্ন দিতে নারি;কর্ণে […]

উতলা সে কুন্তলারই

উতলা সে কুন্তলারই—————————— রমিত আজাদ এক কবিতায় কাব্য লেখা, দুই কবিতায় গল্প;তিন কবিতায় দূর নীলিমায় রঙ লেগেছে অল্প।মনের কোনেও রঙ লালিমা, বর্ণসুধায় কল্প,মেঘ-বালিকার দৃষ্টিসুধায় বিহ্বলতা স্বল্প! হিমের হাওয়ায় পত্রঝরায় অরণ্য আজ নগ্ন,আকাশটা এই সাঁঝবেলাতে আলোর খেলায় মগ্ন।মেঘ-বালিকাও খেলছে খেলা, পূর্ণ কিবা ভগ্ন।ভগ্নহৃদয় পূর্ণতা পায়, মধুর ছোঁয়ায় লগ্ন। রাতের ব্যাথাই মর্ত্যে নামে ভোরের শিশির হয়ে,দিনের রোদে আবার শিশির উড়ছে আকাশ ছুঁয়ে।ঐ […]

দূরের প্রিয়া দূরেই আছে

দূরের প্রিয়া দূরেই আছে———————————- রমিত আজাদ এমন কিছু বিকেল ছিলো, এমন কিছু সন্ধ্যা;দোয়েল ডাকা দুপুর ছিলো, কেমন নিশির গন্ধা!অতীত হওয়া মধুর সময় বিবর্ণ আজ মেঘে,স্মৃতির মাঝি বাইছে তরী, অষ্টপ্রহর জেগে! শুক্লা তিথির চাঁদ ভেঙে দেয় সাধের বাতায়নভগ্নহৃদয় জোৎস্না হারায় আঁধার বনায়ন!বাতাস চলে ঝিরঝিরিয়ে, শিস দিয়ে যায় সুরে;লয়হারা সুর তাল কেটে দেয়; মন ছুটে যায় দূরে! মেঘ-পরী তার মেঘেই থাকে, ফুলপরী […]

বর্ষারাগের ফুল

বর্ষারাগের ফুল———————- রমিত আজাদ কোন সে শ্রাবণ অঝোর ধারার, কোন সে কদম ফুল?কার সে অথৈ প্লাবন স্রোতে, কে হারালো কূল?বৃষ্টি যখন ঝরেই আকুল, ভেজালো কার চুল?এমন ভরা বর্ষারাগে, কে করেছে ভুল? পুঞ্জমেঘের ছাইরঙা ছায় জলরঙা তার কেশ,গোলাপ ঠোঁটে মুক্তো হাসে, জলের দানায় বেশ!আলতা-দুধে মিশলে যে রঙ, তেমনি যে তার ত্বক;একশো বছর দেখলে তাকে, মিটবে কি মোর সখ? রংধনুতে মন-কপোতী, উড়ছে […]

এই তোমাকেই

এই তোমাকেই———————– রমিত আজাদ এখন আমার ভাবতেই অবাক লাগে,এই তোমাকেই সোহাগ করেছি কয়েকটি বছর!আদরে আদরে কেমন ভরে তুলতাম তোমাকে!তুমি আদুরে বেড়ালছানাটির মতন লেপ্টে থাকতে আমার গায়ে। পান্না ও চুনি খচিত ভারী মণিহারটি আজ তোমাকে বেশ মানিয়েছে!তোমার বরের দেয়া বুঝি?শুনেছি ছেলেটি ভালো। হালকা নীল রঙের জর্জেট শাড়ী,তাতে রূপালী কারুকাজ করা।এমন শাড়ীতে তোমাকেই মানায়! যেদিন তোমাকে শাড়ী পরে আসতে বলেছিলাম,সেদিন তুমি এই […]

ঝড়ের পরে – ১

ঝড়ের পরে – ১ আজ কয়েকদিন যাবত বেশ ঢেউ-তরঙ্গ-ভাঙনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি।আমার শুভাকাঙ্খীদের প্রায় সকলেই আমার পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। মানুষকে আমি যতটা না ভালোবাসা দিতে পেরেছি তার চাইতে অনেক বেশী ভালোবাসা মানুষের কাছ থেকে পেয়েছি। আমার শুভাকাঙ্খীদের প্রতি আমি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। যারা আমার পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন তারা অনেকেই চিন্তাগ্রস্ত ও উদ্বিগ্ন!আমি উনাদেরকে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপনপূর্বক বলতে চাই যে অত […]

এই কবিতা সেই কবিতায়

এই কবিতা সেই কবিতায়———————————– রমিত আজাদ এই কবিতা সেই কবিতায় তোমার রুপের বন্দনা!তুমিই আমার মিষ্টি পাখি, তুমিই আমার চন্দনা।গান লিখে যাই তোমার রুপে, ছন্দ যেথায় মন্দ না;সেই গানেরই সুর সেধে যায়, বুলবুলি আর অঞ্জনা। ফুল কাননে পথ হারিয়ে, ফুল্লপরী দিকহারা;জল জমেছে প্রেমনদীতে, প্রেমতরণী মাতোয়ারা!এই ঋতুতেই ভরা গাঙে টলটলে ঢেউ জলধারা;নাগর দিলে মন ইশারা, মৌন পরী দেয় সাড়া! প্রেমিক পথিক দেয় […]

কার্নিশে শয়তান

কার্নিশে শয়তান———————— রমিত আজাদ জানালার কার্নিশে ঝুলে আছে শয়তান,খুব কাছে ঘাপটিতে পাপ আছে সাবধান!জানালার বাইরেটা টিপটপ ছিমছাম,দৃষ্টিতে চোখে পড়ে চাঁদ, তারা, আশমান। সেগুনের কাঠে গড়া জানালার পাল্লা,লোহাকাটা গ্রীলটাতে নকশার জেল্লা!পরিপাটি জানালাতে বায়ু বয় অবিরাম;ঠিক তার উপরেই কার্নিশে শয়তান! কার্নিশে আজাজিল বোঝে কার সাধ্য?খুব কাছে দুর্ভোগ, এই হলো ভাগ্য!অশুভরা অদ্ভুত ছেয়ে আছে ময়দান,আমাদের বড় কাছে ঘাপটিতে শয়তান। কখনো বা রেলে চড়ে, […]

চেনা চেনা সেই সুর

চেনা চেনা সেই সুর————————- রমিত আজাদ চেনা চেনা সেই সুর, আজও কেন অচেনা?কে যে ডেকেছে আমায়, চিরকালেরই চেনা?নীড়ে বাধা যে পাখী, করেছে ডাকাডাকি,চেনা চেনা সে সুরে, চিনিনি তো আমি তারে! এভাবে পথচলা আর, হবে কি কখনো শেষ?খুঁজে ফিরি আজো যে, অচেনা পাখীরই দেশ! তপ্ত আকাশে মেঘের, শাশ্বত ছুটোছুটি!বোশেখে এলো বুঝি, ঝড়েরো লুটোপুটি।সেই ঝড়ে আমি বুঝি, হারাবো সেই অনলে;নীড়ে বাধা সেই […]

মেহেদী রঙা মণি

মেহেদী রঙা মণি————————– রমিত আজাদ মেহেদীর নকশাতে হাত দুটো সুন্দর!অপরূপ সাজে মণি জুড়িয়েছে অন্তর!ঈদ এলো বলে কি সে হাত দু’টো রেঙেছে?নাকি তার হাতে উঠে মেহেদীরা মেতেছে? পাঁচ পাঁচ দশ আঙুলে কত কারুকার্য!লাল জামা, নীল টিপে ঈদী তার ধার্য।চাঁদ রাতে মণি কেন সাজিয়েছে হাত তার?মেহেদীরা হাসে খেলে করপটে মণিটার! রূপা-চাঁদি ঝুমকায়, মণি আজ চমকায়!স্বর্ণালী বালা তার রূপ দেখে থমকায়!মেঘরঙা কেশে তার […]

জারুল ফুলের দিন

জারুল ফুলের দিন————————– রমিত আজাদ “বেশি নিচে নেমে গেছে আপনার হাতটা”,উবারের সিটে বসে বলেছিলো বাক-টা।রিমি-টার পাশে বসে মোলায়েম হাতে মোর ,মৃদু মৃদু বুলিয়েছি সোহাগেতে পিঠ ওর! ধিরে ধিরে নামিয়েছি পাঁচ আঙুল কারুকাজ;লোভাতুর হাত খুঁজে নিয়েছিলো মধুখাঁজ।রসে ভরা কলসীতে জমেছিলো কত মধু,এ’ হাতের পরশেতে অনুভবে ছিলো শুধু! নিতম্বে যেন তার দুটি ঢেউ উত্তাল!হেটে গেলে দোলে ঢেউ, লহরিকা বিহ্বল।কতদিন হেনেছি যে লোভাতুর […]

কৃষ্ণচূড়ার লাল প্রসূন

কৃষ্ণচূড়ার লাল প্রসূন——————————— রমিত আজাদ কৃষ্ণচূড়ার লাল প্রসূনে আমার প্রিয়ার লালী,এই বোশেখে তার চিবুকে, রঙ নিদালীর ডালি।লাল ঘাগরির ঢাল জমিনে রুপ-ললনার হাসি,গ্রীষ্মকালের মধুর বায়ে বাজছে যাদুর বাঁশি। নিদাঘ দুপুর নিলাজ সাজে বেজায় বিগলিত,উষ্ণ বায়ে পুষ্পশাখা দুলছে অবিরত।কৃষ্ণচূড়ার পরাগরেণু মাখায় গালে, হাতে।রুপ-ললিতার দৃষ্টিবাণে লুটায় প্রেমিক পথে। সর্বনাশী কাল-বোশেখী আসলো কি গো ধেয়ে?কৃষ্ণচূড়ার পুষ্পরাজি লুটবে সে কি ছেয়ে?প্রণয় সুধার প্রলয় নীরে প্রেমের […]